অমুসলিমদেরকে ভাই-বোন বলে সম্বোধন করা জায়েয আছে কি?

প্রশ্ন: অমুসলিমদেরকে ভাই-বোন বলে সম্বোধন করা জায়েয আছে কি?
▬▬▬▬💠🌀💠 ▬▬▬▬
উত্তর:
আমাদের জানা প্রয়োজন যে, প্রকৃত ভাতৃত্ব হল, ঈমানি ভ্রাতৃত্ব। অর্থাৎ প্রতিটি মুমিন-মুসলিম পরস্পরে ভাই-ভাই। আল্লাহ তাআলা বলেন:
إِنَّمَا الْمُؤْمِنُونَ إِخْوَةٌ
“মুমিনরা তো পরস্পর ভাই-ভাই।” (সূরা হুজুরাত: ১০)
রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেন:
الْمُسْلِمُ أَخُو الْمُسْلِمِ
“একজন মুসলিম আরেক জন মুসলিমের ভাই।” (সহীহ বুখারী হা/২৪৪২ ও মুসলিম হা/২৫৮০)
ঈমানদারগণ সকলেই আদি পিতা আদম আলাইহিস সালাম এর সন্তান ও মানুষ হিসেবে ভাই-বোন হওয়ার পাশাপাশি ঈমানের বন্ধনে আবদ্ধ দীনী ভাই-বোন। আর এটাই প্রকৃত ভাতৃত্ব।

তবে অমুসলিমদের অন্তর জয় করে তাদেরকে ইসলামের দিকে আকৃষ্ট করার উদ্দেশ্যে মাঝে-মধ্যে ভাইবোন বলে সম্বোধন করা জায়েয আছে। কেননা মুসলিম-অমুসলিম সকলের আদি পিতা একই। এরা দীনী সম্পর্কের দিক দিয়ে ভাই-বোন না হলেও বংশ পরম্পরায় একই পিতামাতার সন্তান এবং মানুষ হিসেবে সকলের উৎস একটাই।
অবশ্য এ সকল অমুসলিম তথা হিন্দু, বৌদ্ধ, খৃষ্টান, অগ্নিপূজক, মাজার পূজারী, নাস্তিক, শিয়া-রাফেযীদেরকে সব সময় ভাইবোন বলে সম্বোধন করা ঠিক নয়। কারণ এতে তাদের মিথ্যা ও বাতিল ধর্মের প্রতি মনে প্রভাব সৃষ্টি হতে পারে। এর পরিবর্তে ফ্রেন্ড-দোস্ত-বন্ধু ইত্যাদি শব্দ ব্যবহার করা যেতে পারে।
আল্লাহু আলাম।
▬▬▬▬◆◈◆ ▬▬▬▬
উত্তর প্রদানে:
আব্দুল্লাহিল হাদী বিন আব্দুল জলীল মাদানী,
দাঈ, জুবাইল দাওয়াহ সেন্টার, সৌদি আরব

Share This Post